মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

মেয়রের বার্তা

 বাণী

       সম্মানীত পৌরবাসী আসসালামু আলায়কুম, হিন্দু ভাইদের আদাব এবং অন্যান্য জাতির প্রতি রইল আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা। সর্বপ্রথম শুকরিয়া জানাই মহান আল্লাহ তায়ালাকে যিনি আমাকে পৌরবাসীর ভোটে ৪ বার চ্যায়ারম্যান ও প্রথমবার মেয়র হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার সুযোগ দান করেছেন। আমি ধন্যবাদ জানাই ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র অনুপ্রেরনায় গঠিত নীলফামারী সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) কর্তৃপক্ষকে।

সম্মানীত পৌরবাসী, নীলফামারী পৌরসভা উত্তর জনপদের অবহেলিত জেলা নীলফামারীর প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত। যার বর্তমানে আয়তন ২৪.৫০ বর্গ কিঃ মিঃ এবং জনসংখ্যা প্রায় ১,২৫,০০০(এক লক্ষ্যপঁচিশ) হাজার। ১৯৬৮ সনের টাউন কমিটি হতে বর্তমান পৌরসভাটি ১৯৭২ সনে পৌরসভায় উন্নিত হয়। আমি চেয়ারম্যান  হিসাবে ১৯৮৯ সনে প্রথম বার, ১৯৯৩ সনে দ্বিতীয় বার, ১৯৯৯ সনে তৃতীয় বার, ২০০৪ সনে চতুর্থ বার ও ২০১১ সনে প্রথমবারের মতো মেয়র হিসাবে নির্বাচিত হই। আপনারা আমার প্রতি যে আস্থা জ্ঞাপন করেছেন তার জন্য আমি আপনাদের নিকট চিরকৃতজ্ঞ।  ১৯৮৯ সনে চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্বভার গ্রহনকালে পৌরসভাটি ছিল একটি তৃতীয় শ্রেণীর। সেই সময় পৌরসভায়  ৩.৫ কিঃ মিঃ পাঁকা রাস্তা (প্রায়) ২.২কিঃ মিঃ পাঁকা ড্রেন ও ২৫ টি লাইট পোষ্ট ছিল । আমার নিরলস পরিশ্রম, ব্যক্তিগত চেষ্টা ও আপনাদের সার্বিক সহযোগিতায়  পৌরসভা ক্রমান্বয়ে ব্যাপক উন্নতির দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। ফলশ্রুতিতে নীলফামারী পৌরসভা ১৯৯৬ সনে ‘গ’ শ্রেণীর হইতে ‘খ’ শ্রেনীতে এবং ২৩ শে মার্চ ২০০৮ সনে ‘ক’ শ্রেনীর পৌরসভায় উন্নীত করতে সক্ষম  হই। পৌরসভা উন্নয়নের অংশ হিসাবে আধুনিক বাস টার্মিনাল, শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে স্বাধীনতা স্মৃতি, ওভারহেড পানির ট্যাংক, আংশিক কাচা-পাঁকা রাস্তা,পুল-কালভার্ট, ড্রেন, নতুন হাটে কিচেন মার্কেট ও গণ-শৌচাগার নির্মান করেছি। শাখামাছা বাজারে কিচেন দ্বিতল মার্কেট, আধুনিক কমিউনিটি সেন্টার, পৌরসভা আলোকিত করনের জন্য লাইটপোল সহ লাইটিং এর ব্যবস্থা ,বিভিন্ন কাঁচা রাস্তা পাঁকাকরন, রাস্তার পার্শ্বে ড্রেন নির্মান ও নতুন পৌরভবন নির্মানের কাজ অব্যাহত রয়েছে । আমার সময়কালে এ পর্যন্ত পৌর এলাকায় পাঁকা রাস্তা ৭০ কিঃ মি,পাঁকা ড্রেন ১৮ কিঃ মিঃ ও ১৮৬০ বিদ্যুতপোলে বর্তমানে ৮০০ টিতে লাইট রয়েছে আগামী জুন মাসের মধ্যে প্রতিটি পোলে আলোর ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়াও গার্বেজ ট্রাক ৩ টি, গভীর নলকুপ ৪ টি, ল্যাপটপসহ কম্পিউটার ৯ টি, মোটর সাইকেল ৪ টি, পাজেরো গাড়ী ১ টি, রোড রোলার ৩ টি ও রিকসা ভ্যান ৩ টি সহ বিভিন্ন উন্নয়ন উপকরন পৌরসভার সেবার মান উন্নয়নে যুক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া পানি সরবরাহের জন্য ৩২ কিঃ মিঃ পানির পাইপ লাইন স্থাপন, পাশাপাশি অতি দরিদ্রের মাঝে বিশুদ্ধ পানি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ১৫০০ টি নলকুপ (টিউবয়েল) স্বল্প মুল্যে, এবং প্রায় ৫(পাচ) হাজার স্যানিটেশন ল্যাট্রিন স্থাপন করা হয়েছে। পৌরসভা বর্ধিত করণের আওতায় সুটি পাড়া, পল্লী বিদ্যুত, জেলা কারাগার, সার্কিট হাউস এলাকা পৌরসভায় যুক্ত হয়েছে।

          আপনাদের  সহযোগিতা ও আমার ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় শহর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করার জন্য দুইটি গার্বেজ ট্রাক ও রাস্তা মেরামতের জন্য একটি নতুন রোড রোলার স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় হতে সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছি। আমি ভবিষৎতে পৌরসভায় আধুনিক সুপার মার্কেট, শিশু পার্ক, ট্রাক ও মাইক্রোবাস টার্মিনাল ও ড্রেন নির্মাণসহ রাস্তাঘাট পাঁকা করে, নীলফামারী পৌরসভাকে পরিচ্ছন্ন, নাগরিকবান্ধব ও আধুনিক পৌরসভা হিসাবে উপহার দিতে চাই। কলেবরে পৌরসভা এলাকা সম্প্রসারনের জন্য ডাক বাংলো পাঁচ মাথা মোড় হতে ইটাখোলা বাদিয়ার মোড়, আনন্দবাবুর পুল হয়ে টুপামারীর নতুন পুলিশ লাইন, বনবিভাগ, কৃষি ফার্ম, সরকারী খাদ্য গুদাম ও নীলফামারী রেল ষ্টেশনকে পৌর সীমানায় অন্তর্ভূক্ত করার প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছি। অতি শীঘ্রই উলেস্নখিত এলাকাসমূহ পৌর সীমানার আওতায় আসবে বলে আশা করছি। এরই মধ্যে পৌরসভার মাস্টার পস্নান প্রণয়নের কাজ চুড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। সেই লক্ষ্যে ধারাবাহিক প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে ২০১২-২০১৩ সনে আমার সময়কালের ২৪তম সম্ভাব্য বাজেট উপস্থাপন করতে যাচ্ছি।

        সম্মানীত পৌরবাসী, আপনাদের নিকট সময়মত পৌরকর  পরিশোধ এবং শহর পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার প্রতি লক্ষ্যরেখে  ময়লা আবর্জনা যত্র-তত্র রাস্তার উপর বা  ড্রেনের মধ্যে  না ফেলার জন্য  উদ্যাত্ত  আহবান  জানাচ্ছি। আপনারা  সময়  মত  পৌরকর  পরিশোধ করে এবং ময়লা আবর্জনা  নির্ধারিত  স্থানে  ফেলে  সহযোগিতা  করলেই  কেবল  নীলফামারী  পৌরাসভাকে  পরিচ্ছন্ন  ও আধুনিক পৌরসভা হিসাবে  গড়ে তোলা সম্ভব।  আশা করি আপনাদের সচেতনতা, সাহায্য ও সহযোগিতায় আমি আমার অভিষ্ট লক্ষ্যেপৌছতে সক্ষম  হব।

ধন্যবাদান্তে

দেওয়ান কামাল আহমেদ

 মেয়র

নীলফামারী পৌরসভা