মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

ছমির উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজ, নীল্গামারী

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

নীলফামারী  জেলার শহরের প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত শিক্ষালাভের জন্য ঐতিহ্যবাহী বৃহত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছমিরউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের আত্ম প্রকাশের পূর্বে এখানে একটি ফোরকানিয়া মাদরাসা  ছিল৷ ফোরকানিয়া মাদরাসাটি নীলফামারী কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানের অধীনে পরিচালিত হইয়া আসিয়াছিল৷ পরবর্তীকালে নীলফামারীর একজন বিশিষ্ট  ব্যবসায়ী জনাব আহাম্মদ দাদা ভাই যিনি তদানিন্তন পশ্চিম পাকিস্তানের অধিবাসী ছিলেন তাহার নামে আহম্মদ  দাদাভাই  কোম্পানী প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর অত্র ফোরকানিয়া মাদরাসাটি আহম্মদ দাদাভাই জুনিয়র মাদরাসা নামে পরিচালিত  হইয়া  আসিতেছিল৷ মাদরাসার সকলব্যয় কোম্পানী কর্তৃক নির্বাহ করা হইত৷ দেশ বিভাগের পর ষাটে রদশকে আহম্মদ ‘দাদাভাই কোম্পানী তদানিন্তন পশ্চিম পাকিস্তানে ইহার স্বদেশে  করাচীতে চলিয়া যায়৷ ফলে কিছুদিনের জন্য মাদরাসাটি স্থানীয় জনসাধারণের অনুদানে পরিচালিত হইতে থাকে ৷অত্র এলাকার শিক্ষার্থীদের জন্য এক মাত্র নীলফামারী ইংলিশ মডেল  হাইস্কুল  ছাড়া অন্য কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছিলনা৷  ফলে  স্থানীয়  জনসাধারণের   ছেলে মেয়েদের  শিক্ষার  প্রসারের   জন্য  অন্য  একটি  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাববোধ করে৷ তত্কালীন মহাককুমা প্রশাসক (এসডিও)  জনাব   আমিরুজ্জামান    সি.এস. পি মহোদয় বিশেষ শিক্ষানুরাগী হওয়ায় তিনি   আহম্মদ  দাদাভাই জুনিয়র  মাদরাসাটিকে  হাইস্কুলে  পরিনত  করার প্রস্তাব  করেন৷  সেই   সময়   নীলফামারী   ইউনিয়নপরিষদের   চেয়ারম্যান   জনাব   মাহাতাব   উদ্দিন   চৌধুরী, বিশিষ্ট তামাক ব্যবসায়ী ছমিরউদ্দিন চৌধুরী  এবং মাদরাসার সম্পাদক জনাব  আব্দুলগণী চৌধুরীসহ অন্যান্য  সদস্যগণের  সঙ্গে  পরামর্শ  করিয়া  আহম্মদ  দাদাভাই কোম্পানীকে লিখিতভাবে জানানো হইলে কোম্পানী উক্ত   মাদরাসার   কোনদায়-দায়িত্ববহন   করার    অপারগতা   প্রকাশ   করে৷   ফলে, মহকুমাপ্রশাসক(এস.ডি.ও) সাহেবের নির্দেশক্রমে একটি সভা আহবান করা হয় এবং বিশিস্ট  তামাক ব্যবসায়ী জনাব  ছমিরউদ্দিন চৌধুরীর  পৃষ্ঠপোষকতায়  আহম্মদ দাদাভাই জুনিয়র  মাদরাসাটিকে ১৯৬২ সালে  জুনিয় রস্কুলে  পরিনত করাহয়   এবং   সরকারের  নিকট   অনুমোদন   লাভ   করেন৷

 

১৯৬৫

নীলফামারী  জেলার শহরের প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত শিক্ষালাভের জন্য ঐতিহ্যবাহী বৃহত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছমিরউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের আত্ম প্রকাশের পূর্বে এখানে একটি ফোরকানিয়া মাদরাসা  ছিল৷ ফোরকানিয়া মাদরাসাটি নীলফামারী কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানের অধীনে পরিচালিত হইয়া আসিয়াছিল৷ পরবর্তীকালে নীলফামারীর একজন বিশিষ্ট  ব্যবসায়ী জনাব আহাম্মদ দাদা ভাই যিনি তদানিন্তন পশ্চিম পাকিস্তানের অধিবাসী ছিলেন তাহার নামে আহম্মদ  দাদাভাই  কোম্পানী প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর অত্র ফোরকানিয়া মাদরাসাটি আহম্মদ দাদাভাই জুনিয়র মাদরাসা নামে পরিচালিত  হইয়া  আসিতেছিল৷ মাদরাসার সকলব্যয় কোম্পানী কর্তৃক নির্বাহ করা হইত৷ দেশ বিভাগের পর ষাটে রদশকে আহম্মদ ‘দাদাভাই কোম্পানী তদানিন্তন পশ্চিম পাকিস্তানে ইহার স্বদেশে  করাচীতে চলিয়া যায়৷ ফলে কিছুদিনের জন্য মাদরাসাটি স্থানীয় জনসাধারণের অনুদানে পরিচালিত হইতে থাকে ৷অত্র এলাকার শিক্ষার্থীদের জন্য এক মাত্র নীলফামারী ইংলিশ মডেল  হাইস্কুল  ছাড়া অন্য কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছিলনা৷  ফলে  স্থানীয়  জনসাধারণের   ছেলে মেয়েদের  শিক্ষার  প্রসারের   জন্য  অন্য  একটি  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাববোধ করে৷ তত্কালীন মহাককুমা প্রশাসক (এসডিও)  জনাব   আমিরুজ্জামান    সি.এস. পি মহোদয় বিশেষ শিক্ষানুরাগী হওয়ায় তিনি   আহম্মদ  দাদাভাই জুনিয়র  মাদরাসাটিকে  হাইস্কুলে  পরিনত  করার প্রস্তাব  করেন৷  সেই   সময়   নীলফামারী   ইউনিয়নপরিষদের   চেয়ারম্যান   জনাব   মাহাতাব   উদ্দিন   চৌধুরী, বিশিষ্ট তামাক ব্যবসায়ী ছমিরউদ্দিন চৌধুরী  এবং মাদরাসার সম্পাদক জনাব  আব্দুলগণী চৌধুরীসহ অন্যান্য  সদস্যগণের  সঙ্গে  পরামর্শ  করিয়া  আহম্মদ  দাদাভাই কোম্পানীকে লিখিতভাবে জানানো হইলে কোম্পানী উক্ত   মাদরাসার   কোনদায়-দায়িত্ববহন   করার    অপারগতা   প্রকাশ   করে৷   ফলে, মহকুমাপ্রশাসক(এস.ডি.ও) সাহেবের নির্দেশক্রমে একটি সভা আহবান করা হয় এবং বিশিস্ট  তামাক ব্যবসায়ী জনাব  ছমিরউদ্দিন চৌধুরীর  পৃষ্ঠপোষকতায়  আহম্মদ দাদাভাই জুনিয়র  মাদরাসাটিকে ১৯৬২ সালে  জুনিয় রস্কুলে  পরিনত করাহয়   এবং   সরকারের  নিকট   অনুমোদন   লাভ   করেন৷

 

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
আলহাজ্ব সুলতান আলী শাহ 0 cpsc.nilphamari@gmail.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

পরীক্ষার সাল

মোট শিক্ষার্থী

A+

A

A-

B

C

D

মোট উত্তীর্ণ

পাশের হার

২০১০

১৩২

১৩

২১

০৯

২৬

০৪

৭৮

৫৯%

২০১১

১৭৮

-

২৭

১৬

৩৯

৪৮

১৩

১৪৩

৮০%

২০১২

১৪৭

২১

২৩

২৫

৩৫

১১২

৭৬%

 

জে.এস.সি

পরীক্ষার সাল

মোট শিক্ষার্থী

A+

A

A-

B

C

D

মোট উত্তীর্ণ

পাশের হার

২০১০

২০৫

-

০১

১১

১৬

৪৪

১০

৮২

৪০%

২০১১

২৮২

-

০৭

১৬

৩১

১০৮

২৬

১৮৮

৭৮%

 

২০১২ সালে শ্রেণী ওয়ারী বর্তমান শিÿার্থী সংখ্যা

ষষ্ঠ

সপ্তম

অষ্টম

নবম

দশম

একাদশ

মোট

১০০%

-

-

-

-

অধ্যক্ষ

ছমির উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজ

নীলফামারী

ফোনঃ ০৫৫১-৬১২৯৭

-